July 18, 2024, 2:22 am
সর্বশেষ:
শ্রীমঙ্গলে চাঞ্চল্যকর আইনজীবী হত্যাকাণ্ডের ২জন গ্রেপ্তার ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় কোটার পক্ষে মিছিল ৭৭তম বিসিএস ক্যাডারদের পুলিশ সুপারের কার্যালয় পরিদর্শন যশোর জেলায় টানা পঞ্চম বারের মতো শ্রেষ্ঠ ওসি সুমন সাতকানিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় সিএমপি’র ইপিজেড থানার অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত ২ আসামি গ্রেফতার বান্দরবানে সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থায় সাধারন সম্পাদক লুৎফুর রহমান এনবিআরের কালো আইন বাতিলের দাবিতে বেনাপোলে সিএন্ডএফ এজেন্টদের বিক্ষোভ কর্মসূচি রোটারি ক্লাব অব বান্দরবানের নতুন কমিটির অভিষেক কিশোর অপরাধ প্রতিরোধে সোনারগাঁয়ে কনসোর্টিয়াম অনুষ্ঠিত

ভারতের রেল ট্রানজিট নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না’

  • Last update: Tuesday, June 25, 2024

ভারতকে রেলপথে ট্রানজিট সুবিধা দেওয়া নিয়ে সমালোচনার জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শেখ হাসিনা এ দেশকে বিক্রি করে না। কারণ আমরা এ দেশ স্বাধীন করেছি। যারা বিক্রির কথা বলে তারা একাত্তর সালে পাকিস্তানের দালালি করেছিল।

২১-২২ জুন ভারত সফর নিয়ে মঙ্গলবার (২৫ জুন) গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

ভারতকে রেলপথ ট্রানজিটের সুবিধা দেওয়ার সমালোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রেল যোগাযোগ চালুর সমালোচনা হচ্ছে কেন? জবাবে প্রশ্নকর্তা বলেন, বলা হচ্ছে ভারতের কাছে বাংলাদেশের বিক্রির ষড়যন্ত্র চলছে। যারা অপপ্রচার চালায় তাদের মুখরোচক গল্প।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার একটা প্রশ্ন আছে। বিক্রির ওজনটা কীভাবে করা হয়েছে? কোনও কিছু বিক্রি হলেতো ওজন মেপে হয় না? এখন তো ইলেকট্রনিক মেশিন আছে। আগে দাঁড়িপাল্লায় মাপা হত। তো কিসে মেপে বিক্রি হচ্ছে? আর বিক্রিটা হয় কীভাবে? বাংলাদেশ স্বাধীন দেশ। মুক্তিযুদ্ধ করে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। যাদের সমালোচনা করে তাদের জানা উচিত একটি মাত্র মিত্র শক্তি যারা আমাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নিজেদের রক্ত ঢেলে এই দেশ স্বাধীন করে দিয়েছে। আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা সেখানে প্রশিক্ষণ পেয়েছে।

তিনি বলেন, পৃথিবীর যেখানে মিত্র শক্তি হিসেবে সাহায্য করেছে তারা কিন্তু সেই দেশ থেকে ফেরত যায়নি। এখনও জাপানে আমেরিকান সৈন্য, জার্মানিতে রাশান সৈন্য, এরকম বিভিন্ন দেশ দেখলে দৃষ্টান্ত পাওয়া যাবে। এখানে ভারত ব্যতিক্রম। তারা মিত্র শক্তি হিসেবে আমাদের সঙ্গে যুদ্ধ করে এসেছে। যখনই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব চেয়েছেন তারা বিদেশে ফেরত যান, তাদের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়েছেন। ফেরত নিয়ে গেছেন, যুদ্ধের সরঞ্জাম নিয়ে। তাদের কাছে পাকিস্তান হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। আমরা কিন্তু স্বাধীন, সার্বভৌম রাষ্ট্র পেয়েছি। ভারত কিন্তু সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করেছে।

সরকারপ্রধান বলেন, এরপরে যারা বলে বিক্রি হয়ে যাবে। তাতে বিক্রিটা হয় কীভাবে? যারা এটা বলে তাদের মাথাই ভারতের কাছে বিক্রি করা। সামরিক শাসক জিয়া, এরশাদ ও খালেদা জিয়া ওপর দিয়ে ভারতবিরোধী কথা বলেছিল, আর ভেতর দিয়ে তাদের পা ধরে বসে ছিল। এগুলো আমাদের নিজের দেখা ও জানা। তাই দেশ বিক্রির কোনও অর্থ হয় না।

আমাদের স্বাধীন, সার্বভৌম দেশ। যত ছোট হোক এটা আমাদের সার্বভৌম দেশ। সেই সার্বভৌম রক্ষা ও স্বকীয়তা বজায় রেখে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখে কাজ করছি। এই যে আমরা সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থা খুলে দিলাম, তাতে সবচেয়ে বেশি লাভবান আমাদের দেশের মানুষ। তারা চিকিৎসা, পড়াশোনার জন্যই যায় বা অন্যান্য কাজে যায়, হাটবাজার করতে যায়, আজমির শরিফে যায়, আবার বিভিন্ন জায়গায় যায়। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রতো আরও উন্মুক্ত হবে। কাজে বিক্রি আমরা করি না। যারা বিক্রির কথা বলে তারা বেচার জন্য অথবা ‘ব্যবহার করুন আমাকে’ এ কথা নিয়ে বসে থাকে। এটা হলো বাস্তবতা। শেখ হাসিনা এ দেশকে বিক্রি করে না। কারণ আমরা এ দেশ স্বাধীন করেছি। যারা বিক্রির কথা বলে তারা একাত্তর সালে পাকিস্তানের দালালি করেছিল, বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, একটা দেশের মধ্যে ট্রানজিট দিলে ক্ষতিটা কী? রেল যেগুলো বন্ধ ছিল তা আমরা আস্তে আস্তে খুলে দিয়েছি। যাতে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য সহজ হচ্ছে। ওই অঞ্চলের মানুষ উপকৃত হচ্ছে, তাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি হচ্ছে। যে সমস্ত জিনিস আমাদের দেশে নেই তা আনার সুযোগ হচ্ছে। অর্থনীতিতে এটা সুবিধা হচ্ছে। আমরা কি চারদিকে দরজা বন্ধ করে বসে থাকব? সেটা হয় না।

শেখ হাসিনা বলেন, ইউরোপের দিকে তাকান সেখানে কোনও বর্ডারই নেই, কিছুই নেই। তাহলে একটা দেশ আরেকটা দেশের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে? একসময় সেখানে নো-ম্যানস ল্যান্ড ছিল। এখন কিন্তু সেসব কিচ্ছু নেই। এখন সেসব উঠে গেছে। কাউকে বাদ দিয়ে নয়, সব দেশ স্বাধীন দেশ। কোনও দেশ কারও কাছে বিক্রি করেনি। দক্ষিণ এশিয়ায় কেন বাধা দিয়ে রাখব? দেশের মানুষের কথা চিন্তা করতে হবে, তাদের ভাগ্য পরিবর্তন সব থেকে বেশি প্রয়োজন।

Drop your comments:

Please Share This Post in Your Social Media

আরও বাংলা এক্সপ্রেস সংবাদঃ
© 2023 | Bangla Express Media | All Rights Reserved
With ❤ by Tech Baksho LLC