আমিরাত সংবাদ টপ নিউজ

বাংলাদেশি ওমেন ইন ইউএই’র আয়োজনে পিঠা উৎসব ২০২০ অনুষ্ঠিত

Share this news with friends:

শারজাহ প্রতিনিধিঃ দেশি সংস্কৃতি দূর পরবাসে প্রবাসীদের কাছে পরিচয় করে দেওয়া এবং যান্ত্রিক ব্যস্ততার একটু ভিন্নতা ফিরিয়ে আনতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি নারীদের অনলাইন ভিত্তিক সংগঠন বাংলাদেশি ওমেন ইন ইউএই’র আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে বাংলার ঐতিহ্যবাহী আঞ্চলিক পিঠা উৎসব। প্রাণ আর.এফ.এল গ্রুপের সার্বিক সহযোগিতায় গত ১৯শে নভেম্বর শারজাহস্থ হুদাইবিয়াহ রেস্টুরেন্ট হলরুমে সামাজিক দূরত্ব মেনে স্বল্প পরিসরে এক মিলনমেলা ও পিঠা উৎসব আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সিদরাতুল মুনতাহার। অনুষ্ঠানে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম ইউএই’র সভাপতি ইয়াসমিন ইসলাম মেরুনা, বাংলাদেশ ওমেন’স এসোসিয়েশন দুবাই এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আখতার লীনা ও আমিরাতের বহু পরিচিত রন্ধনশিল্পী ফাহমিদা ইসলাম চৌধুরী।

Advertisements

পিঠা উৎসবে প্রায় ২০ ধরনের পসরা সাজানো হয়েছিল। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ছিল—ভাঁপা পিঠা, ভেজিটেবল ঝাল পিঠা, ছাঁচ পিঠা, ছিটকা পিঠা, চিতই পিঠা, চুটকি পিঠা, চাপড়ি পিঠা, চাঁদ পাকন পিঠা, ছিট পিঠা, সুন্দরী পাকন, সরভাজা, পুলি পিঠা, পাতা পিঠা, পাটিসাপটা, পাকান পিঠা, পানতোয়া ও পুডিং পিঠা।

অনুষ্ঠান আয়োজনে ছিলেন গ্রুপ্রের এডমিন সাবিহা ইয়াসমিন তানিয়া। তানিয়া বলেন, ‘নিজের মাতৃভূমি থেকে দূরে থাকা যে কতটা কষ্টকর সেটা এক প্রবাসী ছাড়া অন্য কেউ বুঝবে না। এই জন্যই শত ব্যস্ততার মধ্যে নিজের মাতৃভুমির থেকে দূরে থাকলেও আমরা চেস্টা করছি ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে। প্রবাসে একে অপরের সুখেদুঃখে পাশে থকতে’। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন গ্রুপের সদস্য নুসরাত ইসলাম সাদিয়া, সালমা আক্তার ও কামরুন নেসা।

Advertisements

উপস্থিত ছিলেন আমিরাতে বসবাসরত বিভিন্ন প্রদেশ থেকে আসা গ্রুপের সদস্য সহ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে পিঠা প্রতিযোগীতায় শাহেনা আক্তার রাখীকে প্রথম বিজয়ী ঘোষণা করা হয়, দ্বিতীয় আয়েশা আরেফিন অনন্যা ও হাসি শারিনাকে তৃতীয় বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

Advertisements

আগত অতিথিদের জন্য ছিলো লাকি ড্র তে বিজয়ী হয়েছে সালমা আক্তার। পাশাপাশি এই গ্রুপের তিনজন সক্রিয় সদস্য আয়েশা আরেফিন অনন্যা, সিমরাহ হোসাইন, জাহানারা উর্মি পুরস্কৃত করা হয়।

অনুষ্ঠানে সোহযোগীতায় ছিলেন পিংক সিটি গাউন আজমান, কুতুব শাহী রেস্টুরেন্ট আজমান ও হুদাইবিয়াহ রেস্টুরেন্ট।

Drop your comments:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *