ত্ব-হার সন্ধান চেয়ে রংপুরে মানববন্ধন

জেলা সংবাদ টপ নিউজ বাংলাদেশ
Share this news with friends:

আলোচিত ইসলামি বক্তা আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনানসহ তার তিন সঙ্গীর সন্ধানের দাবিতে রংপুরে মানববন্ধন হয়েছে। নিখোঁজদের দ্রুত সন্ধান পাওয়া না গেলে সারাদেশে গণআন্দোলনের হুশিয়ারি দেন বক্তারা।

মঙ্গলবার বিকালে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরের সামনে এ মানববন্ধন হয়। সচেতন রংপুরবাসী, নিপীড়নের বিরুদ্ধে রংপুর, রংপুর বিভাগীয় কমার্শিয়াল আর্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে ত্ব-হার পরিবার, বন্ধুবান্ধব, শুভাকাঙ্ক্ষী, অনুরাগীসহ রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন।

Advertisements

বক্তারা বলেন, তরুণ ও মেধাবী ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানসহ তার সফরসঙ্গী আব্দুল মুকিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজ নিখোঁজ রয়েছেন। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এখন পর্যন্ত কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

তারা আরও বলেন, পুলিশ চাইলেই সবকিছু সম্ভব হয়, কিন্তু নিখোঁজ আবু ত্ব-হা আদনানদের বেলায় তা হচ্ছে না কেন? এ দেশের নাগরিক হিসেবে নিখোঁজদের সন্ধান চেয়ে দাবি জানানোর অধিকার আমাদের রয়েছে। কিন্তু পাঁচদিনেও তাদের সন্ধান না পাওয়াটা উদ্ধেগজনক।

দ্রুত ত্ব-হা ও অন্যদের সন্ধান পাওয়া না গেলে রংপুরসহ সারাদেশে গণআন্দোলন কর্মসূচির হুশিয়ারি দেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

Advertisements

সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক হানিফ খান সজিবের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইমরান, ফয়সাল, ইয়াসির আরাফাত, আহমেদ বাবু, জামান, ফাহিম ও রায়হান কবীরসহ বিভিন্ন মসজিদ ও মাদ্রাসার মুসল্লি, শিক্ষক-ছাত্ররা।

একই দাবিতে দিনাজপুর জেলা প্রেসক্লাব চত্বরসহ রংপুর বিভাগের বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে।

রংপুর মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন বলেন, নিখোঁজের বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। সব ধরনের কারণ ও সন্দেহ মাথায় রেখে তদন্ত কাজও অব্যাহত রয়েছে। তবে এখনই স্পেসিফিক কিছু বলা যাচ্ছে না।

প্রসঙ্গত রংপুরে ওয়াজ মাহফিল শেষে ঢাকার বাসায় ফেরার পথে আলোচিত ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনান নিখোঁজ হয়েছেন বলে তার পরিবার অভিযোগ করেছে। এছাড়াও তার সঙ্গে নিখোঁজ হয়েছেন আব্দুল মুহিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দীন। ১৩ জুন থেকে তারা নিখোঁজ রয়েছেন।

Advertisements

ত্ব-হার নিখোঁজ হবার তথ্য জানিয়ে দারুসসালাম এবং মিরপুর থানায় গেলে কোন থানাই সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি বলেও অভিযোগ করছেন তার পরিবার। এ নিয়ে সর্বশেষ রংপুর সদর থানায় একটি জিডি করা হয়েছে।

Drop your comments: