ইউপি নির্বাচনে স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ব্যবস্থাঃ সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার

জেলা সংবাদ টপ নিউজ বাংলাদেশ
Share this news with friends:

আবদুল্লাহ আল মামুন, সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরার কলারোয়া, তালা ও পাটকেলঘাটা থানার স্থগীত ইউপি নির্বাচনের নতুন তারিখ দেওয়া হয়েছে ২১ জুন। লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে কিভাবে নির্বাচন হবে সেটি নির্বাচন কমিশন ভেবে দেখবে।

জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নির্বাচনটি পরবর্তী সুবিধামত কোন সময়ে নেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়েছিল। লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে সাতক্ষীরার দুই উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণের বিষয়ে এসব কথা বলেন সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

Advertisements

নির্বাচনী পরিবেশ কেমন হবে এমন প্রশ্নে পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ হবে শান্তিপূর্ণ। নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে হবে সব প্রার্থীদের। ভঙ্গ করলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, যে কোন প্রার্থীর ক্ষেত্রে নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে হবে। যদি কেউ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে তবে নির্বাচন কমিশনের যে আইন রয়েছে সেই আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যদি কেউ হুমকি ধামকি দিয়ে থাকে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে তবে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্বাচন কমিশন ও থানাতে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ দাখিল করতে অনুরোধ করছি। কেউ আইনের উর্দ্ধে নয়, সে যেই হোক তার আমরা তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

Advertisements

সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নাজমুল কবির বলেন, ২১ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার লক্ষ্যে সার্বিক প্রস্তুতি চলমান রয়েছে। সাধারণ ভোটারা নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারবেন। ভোটারদের হুমকি ধামকি দিলে বা কেউ ভোট কেন্দ্রে যেতে বাঁধা দেওয়া হুমকি দিচ্ছে এমন এমন ঘটনা ঘটলে প্রার্থী বা ভোটারদের লিখিত অভিযোগ দিতে অনুরোধ করছি। বিষয়টি তাৎক্ষণিক উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে অবহিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে গত ১১ এপ্রিল সাতক্ষীরাসহ ১৯ জেলার ৬৪ উপজেলায় ১ম ধাপে ৩৭১ ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। পরবর্তীতে ৩ জুন নির্বাচন কমিশনের সভায় আগামী ২১ জুন স্থগিত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে কমিশন। কমিশনের সিদ্ধান্ত মতে সাতক্ষীরায় চলছে নির্বাচন আয়োজনের প্রস্তুতি। সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ১১টি ও কলারোয়া উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে নির্বাচনের লক্ষ্যে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে তালা ও কলারোয়া উপজেলার সংশ্লিষ্ট রিটানিং কর্মকর্তারা।

Drop your comments: